Featured Video Play Icon

বগুড়ার বিখ্যাত কলোনির চাপ এবং কাবাব

বগুড়া যাব। তো কোথায় কোথায় যাব? লিষ্টের ১ম ৩/৪ টা জিনিসের মধ্যেই ছিল কলোনির চাপ। কোন একটা জেলার একটা কলোনির চাপ এতটা জনপ্রিয় হতে পারে আইডিয়া ছিল না মোটেও। যাই হোক, পুরো মহাস্থানগড়, সেখানকার যাদুঘর, বেহুলা লক্ষিনন্দরের বাসরঘর, জিয়ত কুন্ড, গকুল মেধ, মোহাম্মদ আলী প্যালেস যাদুঘর, শাহ সুলতান এর মাজার ইত্যাদি ঘুরে এসে সন্ধ্যায় গেলাম কলোনির চাপ খেতে। সেখানে বেশ প্রসিদ্ধ চাপের ব্র্যান্ড হচ্ছে চুন্নু চাপ। দোকানের মালিকের নাম হচ্ছে চুন্নু মিয়া। পাশে আরো কিছু দোকান আছে যারা চাপ বানায়, তবে দেখেই বোঝা যায় চুন্নু চাপ  কোন দোকান টা।
ভিডিও তে চাপ কিভাবে বানায়, দোকানের ইনভায়রন্মেন্ট কেমন ইত্যাদি দেখিয়েছি। জানি ভিডিও ভাল হয় নি, যাষ্ট চেষ্টা করেছি আর কি।

তো, যেয়ে দেখি বিরাট ভীর। দোকান তো সম্পূর্ণ ভরা, একটা সিঙ্গেল চেয়ার ও খালি নাই। তার উপর দোকানের সামনের ফুটপাত সহ রাস্তা পুরোটা মানুষ আর মোটরসাইকেল দিয়ে ভরা। দেখেই আইডিয়া হয়ে গেল, কেমন হতে পারে জিনিস টা। প্রায় ১০/১২ জন কারিগর কাজ করচ্ছে চাপ বানানোর জন্য।

দোকানটি বিকাল ৫টা থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত মাত্র ৫ ঘন্টার জন্য খোলা থাকে। দিনের অন্য সময় দোকান বন্ধ থাকে।

যাই হোক, চাপ টা বেশ সুস্বাদু ছিল এবং দাম ও খুব বেশি না। সাথে লুচি। পোষ্টের শুরুর ছবিটার কড়াই তে আস্ত মুরগী ভাজা হয়।

আমি গরুর চাপ খাওয়ার পর আর মুরগীর চাপ খেতে পারিনি। পেটে নূন্যতম যায়গা ছিল না। আর স্বাদ এর কথা এক্সপ্লেইন করা সম্ভব না। সময় সুযোগ হলে, একদিন যেয়ে খেয়ে আসতে পারেন। দই এর কথা আরেকদিন বলব।

কিভাবে যাবেনঃ
বগুড়া শহরের কেন্দ্র হচ্ছে সাত মাথা। এখানে সত্যিই ৭ টি রাস্তা এসে যুক্ত হয়েছে। ৭ মাথা মোড় থেকে কলোনি যাবার জন্য অটো এবং রিক্সা পাওয়া যায়। অটো ভাড়া ৫ টাকা করে প্রতি জন আর রিক্সায় কলোনী পর্যন্ত ২৫ টাকা ভাড়া। রিক্সা/অটো ওয়ালাকে বললে একেবারে চাপের দোকানের সামনেই নামিয়ে দিবে।

Leave a Reply