রাষ্ট্র, সংবিধান ও সার্বভৌমত্ব বিষয়ক কোরআনের আয়াত

আজ রাষ্ট্র, সংবিধান ও সার্বভৌমত্ব বিষয়ক কোরআনের কিছু আয়াত এর বাংলা পোষ্ট করলাম। আয়াতগুলো এমন যে, অর্থ খুব সহজ ও সাধারণ। সংবিধান, ক্ষমতার উৎস, রাষ্ট্র, রাজনীতির অনেক প্রশ্নের উত্তর একসাথে পাওয়া যাবে বলে আশা করি।

★সকল বিষয়ের উপর পূর্ণাঙ্গতা ঘোষনা:
আমি এ পবিত্র কুরআনে কোন কিছুরই বর্ণনা বাদ দেইনি।
(সূরা আন‘আম:৩৮)

আমি তোমাদের জন্য তোমাদের জীবনবিধানকে পরিপূর্ণ করে দিলাম
(সূরা মায়েদাঃ ০৩)

★ইসলাম ছাড়া অন্য সকল ধর্ম ও মতবাদের ব্যাপারে:
যে ইসলাম ছাড়া অন্য কোন ধর্ম-তন্ত্র-মন্ত্র-মতবাদ গ্রহণ করবে তার কিছুই আল্লাহর নিকট গ্রহণযোগ্য হবেনা। পরকালে সে হবে চরম ক্ষতিগ্রস্থ।
(সূরা বাকারা: ১৩০)

★রাসুল সা. তোমাদের জন্য (মহান আল্লাহর পক্ষ থেকে বিধি-বিধান সহ অন্যান্য) যা কিছু নিয়ে এসেছেন তার পুরোটাই অনুসরণ কর আর যা নিষেধ করেছেন তা থেকে বিরত থাক।
(সূরা হাশর:০৭)

★তোমরা কি এ মহাগ্রন্থের কিছু অংশ মেনে নিবে আর কিছু অংশ অস্বীকার করবে? যদি এমনটা কর তবে এর প্রতিদান হিসেবে পৃথিবীতে পাবে চরম লাঞ্চনা আর পরকালে তোমাদেরকে নিক্ষেপ করা হবে কঠিনতর শাস্তিতে।
(বাকারা: ৮৫)

★আল্লাহর সার্বভৌমত্ব:
আল্লাহই একমাত্র আইন দাতা।
(সূরা আনআম: ৫৭)

★তারা কি জাহেলী যুগের আইন চায়? অথচ শান্তিকামীদের জন্য আল্লাহ অপেক্ষা উত্তম সংবিধান প্রণয়নকারী আর কে আছে!
(সূরা মায়েদা:৫০)

★তোমরা মানুষের মাঝে আল্লাহ প্রদত্ত আইন দ্বারা বিচার কর, তোমাদের নিজ মনোবৃত্তির অনুসরণ করবেনা।
(সূরা মায়েদা: ৪৮)

★তারা বলে আমাদের হাতে কি কিছুই নেই? হে নবী আপনি বলুন, সকল ক্ষমতার মালিক একমাত্র আল্লাহ তা‘য়ালাই।
(সূরা আল-ইমরান: ১৫৪)

★তিনিই (আল্লাহ) সকল বিচারকের বিচারক।
(সূরা…..)

★তিনিই (আল্লাহ) কি সকল বিচারকের বিচারক নন?
(সূরা তীন: ০৮)

★যারা আল্লাহর দেয়া বিধান অনুযায়ী বিচার করে না তারা কাফের, জালেম, ফাসেক ।
(সূরা মায়েদা: ৪৪, ৪৫, ৪৭)

★হে ঈমানদারগণ তোমরা ইনসাফ ও ন্যায়ের উপর প্রতিষ্ঠিত থাক।
(সূরা আল-আ‘রাফ: ২৯)

★হে নবী বলুন,আমি তোমাদের মধ্যে ন্যায় বিচার করতে আদিষ্ট হয়েছি।
(সূরা শুরা:১৫)

★যদি বিচার নিস্পত্তি কর তবে তাদের মধ্যে ন্যায় বিচার কর। নিশ্চয়ই আল্লাহ ন্যায়পরায়ণ কারীদেরকে ভালোবাসেন।
(সূরা মায়েদা: ৪২)

★তোমরা কোন সম্প্রদায়ের উপর শত্রুতার কারণে অত্যাচার করোনা, সুবিচার কর।
(সূরা মায়েদা: ০৮)

★আল্লাহ তা‘য়ালা জালিমকে অপছন্দ করেন।
(সূরা আল-ইমরান: ১৪০)

★আমি যদি তাদেরকে দুনিয়াতে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা প্রদান করি তবে তারা সেথায় সালাত কায়েম করবে, যাকাতের বিধান প্রতিষ্ঠা করবে, মানুষদেরকে উত্তম কাজের আদেশ করবে এবং খারাপ কাজ থেকে নিষেধ করবে।
(সূরা হজ্ব:৪১)

★যারা আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে এবং সমাজে সন্ত্রাসী করে তাদের শাস্তি হচ্ছে-তাদেরকে মৃত্যুদন্ড দেয়া হবে।
(সূরা মায়েদা: ৩৩)

★পুরুষ চোর এবং নারী চোর উভয়ের হাত কেটে দাও। তারা যা করেছে, এটা তারই শাস্তি আল্লাহর পক্ষ থেকে।
(সূরা ময়েদা: ৩৮)

Leave a Reply