Anonymous Blogger

ইসলাম বিরোধী ব্লগার বিনা নোটিশে গ্রেফতার ও কিছু কথা

বাংলাদেশে ব্লগিং এখনো অতোটা মাঠ পর্যায়ে যেতে পারেনি। ইন্টারনেট তথা সোসাল নেটওয়ার্ক ব্যাবহারকারীদের সংখ্যা অনুপাতে ব্লগারের সংখ্যা নিতান্তই কম। ব্লগিং এ মূলত তরুণরাই এগিয়ে এবং সেটাই স্বাভাবিক।

তদুপরি ব্লগারের (বাংলা ব্লগারের) সংখ্যা একেবারে কম নয়। তা না হলে সামহোয়ারইন,প্রথম আলো ব্লগ,আমার ব্লগ,সোনার বাংলা ব্লগ, নাগরিক ব্লগের আরো আরো ব্লগ কমিউনিটি প্ল্যাটফর্ম গড়ে উঠত না। ব্লগ হল নিজের ডায়েরী। মত প্রকাশের এর সীমাহীন স্বাধীনতা। পাশাপাশি নিজের মত,চিন্তা,চেতনা অন্যের সাথে শেয়ার করা। শুধু চিন্তা/চেতনা নয়, যে কোন কিছু। বর্তমান যুগে মেইনস্ট্রিম মিডিয়া থেকে ব্লগের ভূমিকা কোন অংশে কম নয়। মেইনস্ট্রিম মিডিয়া যেভাবে নিয়ন্ত্রন করা যায়, ব্লগ সেভাবে নিয়ন্ত্রন করা যায় না। আমার মতে তা সম্ভবও নয়।

ব্লগ কমিউনিটিতে যুক্ত হতে পারেন যে কেউ। কে নাস্তিক, কে আস্তিক তা যাচাই করার সুযোগ এখানে নেই। স্বাধীন ব্লগিং সবার অধিকার। কিন্তু এই স্বাধীনতার ই অপব্যাবহার করে আসছেন অনেক ব্লগার। বিশেষকরে কিছু নাস্তিক ও ইসলাম বিরোধী ব্লগার এই স্বাধীনতার সুযোগে আস্তিকদের কটাক্ষ্য করতে যে কোম ভাষার ব্যাবহার করত। এই নিয়ে প্রায় সব ব্লগ কমিউনিটিই দুই ভাগে ভাগ হয়ে যায়। কোন পক্ষ আস্তিক দের সমর্থন দিতে থাকে,কেউ দেয় নাস্তিক দের।

কোন মুসলমানই তার আল্লাহ ও রাসুল (সাঃ) কে নিয়ে আজে বাজে কথা শুনতে ব্লগে আসেন না। একইভাবে কোন ধর্মের ব্লগারই তার সৃষ্টিকর্তার ব্যাপারে এই ধরণের কথা শুনতে ব্লগে আসেন না। নাস্তিকদের পোষ্ট/লেখা নিয়ে আস্তিক ব্লগার দের তেমন কোন প্রশ্ন কখনোই ছিল না। আপত্তি ছিল শুধু কিছু নিম্নমানের নাস্তিক দের সৃষ্টিকর্তা নিয়ে বলা অশ্লীল কমেন্ট/লেখা গুলোর প্রতি।

[তবে যাই হোক, এই ধরনের ইসলাম বিরোধী ব্লগার দের লেখা গুলো কেন এবং কিভাবে তা মিডিয়াতে এল। থাবা বাবা ওরফে রাজীব কে বা কোন শ্রেণীর ব্লগার ছিল। কোন ব্লগে কি লিখত, মারা যাবার পর তার লেখা মুছে দেয়া হয়েছিল। কারা পত্রিকায় প্রকাশ করেছিল। সাহাবাগ এর সাথে তাদের সম্পর্ক ছিল কি ছিল না। তা সবাই জানি।]

তিন জন ইসলাম বিরোধী ব্লগার গ্রেফতার হয়েছেন আইন প্রয়োগকারী সংস্থার হাতে। আরো অনেক এই ধরনের ধর্ম বিদ্বেষী ব্লগার রয়েছে। তবে এই গ্রেফতার কাজের আগে অন্তত একবার হলেও তাদের কোন ধরনের নোটিশ দেয়া উচিৎ ছিল।যাতে তারা নিজেরাই শুধরে যেতে পারতেন। কিন্তু সরকার তা করেনি। সরকার করেছে জল ঘোলা। শেষ পর্যন্ত “হেফাজতে ইসলাম” এর দাবীর মুখে অন্তত কয়েকজনকে গ্রেফতার করতে হয়েছে। আরো কাউকে গ্রেফতার করা হবে কিনা তা জানা যায় নি। আমার ব্লগ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। চলছে ব্লগে ব্লগে বিষোদগার। পক্ষে বিপক্ষে বিভিন্য কথা। আমি সে দিকে যেতে চাই না।

শুধু কয়েক তা পয়েন্টে বলতে চাইঃ

ইসলাম বিরোধী ব্লগার দের এই ধরনের বাজে/অশ্লীল মন্তব্য করে আস্তিক দের ধরমানুভূতিতে এভাবে আঘাত কোনভাবেই মেনে নেয়া যায় না।
সরকারের কোন ভাবেই এই স্পর্শকাতর বিষয় নিয়ে পানি ঘোলা করা উচিৎ হয়নি।
দোটানায় ভুগছে সরকার।

সরকারের প্রতি অনুরোধ, এই ধরনের কর্মকান্ড ঠেকাতে এখনই পদক্ষেপ নিন। আগে আইন প্রণয়ন করুন। ব্লগার ও দেশ বাসীদের জানান। তারপর প্রয়োগ করুন। কারো ভুল শুধরানোর সুযোগ থাকলে তাকে সেই সুযোগ দেয়া উচিৎ।

একজন আস্তিক হিসাবে, ধর্মদ্রোহীদের আমি ঘ্রীনা করি।

নোটঃ আমার সামু ও ফেবু স্টেটাস থেকে পেষ্ট করা। ইমেজ সোর্স উইকিপিডিয়া

২৭৬৫ টি সর্বমোট হিট ২ টি আজকের হিট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *