অনলাইনে আয় – কনসাল্টেন্সি ও কোলেবরেশন

কনসাল্টেন্সি, প্রোমোশন ইত্যাদি অনলাইনে আয়ের জন্য তেমন কমন কোন মাধ্যম না। এটা ডিপেন্ড করে আপনি অনলাইনে কতটা পপুলার সেটার উপর। পাশাপাশি আপনি অনলাইকে কোন একটা প্ল্যাটফর্মে কতটা দক্ষ এবং একই সাথে কতটা জনপ্রিয় সেটার উপরেও।

একটা উদাহরণ দেয়া যাকঃ ধরুন আপনি ইউটিউবে ভিডিও মার্কেটিং করচ্ছেন বা আপনার একটি ওয়েবসাইট রয়েছে, যেখানে পর্যাপ্ত এসইও করার পরেও সফলতা পাচ্ছেন না। আপনি বুঝতে পারচ্ছেন কোথাও হয়ত কোন একটা ভুল করে যাচ্ছেন কিন্তু ধরতে পারচ্ছেন না। পাশাপাশি এপনি এমন একজন কে চেনেন, যে একই প্ল্যাটফর্মে অন্য কোন ক্যাটগরী নিয়ে কাজ করে। হতে পারে তাঁর ও আপনার মত ইউটিউব চ্যানেল আছে অথবা ওয়েবসাইট আছে, যেটা অন্তত আপনার টার থেকে জনপ্রিয়।

এমন ক্ষেত্রে আপনি তাঁর সাথে যোগাযোগ করে, কোন একটা প্রফিট দেখিয়ে আপনার ওয়েবসাইট/ইউটিউব চ্যানেল বা অন্য যে কোন কিছুর জন্য টিপস নিলেন। এতে হয়ত সে আপনাকে টাকার কথা বলবে না কিন্তু আপনার উচিত তাকে সম্মানি দেয়া। এটাই হচ্ছে তাঁর জন্য কনসাল্টেন্সি ফি। এক্ষেত্রে তাঁর নিজস্ব কনসাল্টেন্সি ফার্ম থাকতে হবে এমন কোন কথা নেই।

উদাহরন দুইঃ এই ক্ষেত্রেও আপনার একটি সাইট আছে অথবা ইউটিউব চ্যানেল আছে, যেগুলো প্রায় একই ক্যাটাগরীর। কিন্তু দুজনই প্রায় সমান জনপ্রিয় এবং কোন কোন ক্ষেত্রে সে আপনার কম্পিটিটর এর পর্যায়েও পরে। এমন ক্ষেত্রে আপনি তাঁর সাথে কোলেবরেশন করতে পারেন। কোলেবরেশন বলতে তাঁর সাথে লিঙ্ক এক্সচেঞ্জ করলেন। আপনার সাইট থেকে কিছু ট্রাফিক (ভিজিটর) তাঁর সাইটে ড্রাইভ করলেন এবং এর বিনিময়ে সেও তাঁর সাইট থেকে কিছু ট্রাফিক আপনার সাইটে ড্রাইভ করল।

এতে কি হলো? দুজনেরই ভিইটর বাড়ল। দুজনের ই নতুন পরিচিতি বারল। এটার নাম কোলেবরেশন। অনলাইন জগতে কোলেবরেশন খুবই কমন এবং জনপ্রিয়।

৫৫২ টি সর্বমোট হিট ৫ টি আজকের হিট