Google Blogger

গুগোল ব্লগস্পট’এ ফ্রি ব্লগ খোলা ও বেসিক কাস্টমাইজেশন

ব্লগস্পট হচ্ছে গুগোলের নিজস্ব একটি ব্লগিং প্ল্যাটফর্ম যার প্রায় পুরোটাই ফ্রিমিয়াম। ফ্রিমিয়াম মানে হচ্ছে, এখানে টাকা দিয়েও আপনি কোন বার্তি সুবধা পাবেন না যেখানে ওয়ার্ডপ্রেস ডট কম তাদের ফ্রি ব্লগ সাইট এর পাশাপাশি টাকার বিনিময়ে কিছু বার্তি সুবিধা প্রদান করে থাকে। যেমন কাষ্টম ডোমেইন, বার্তি স্পেস ইত্যাদি। কিন্তু, ব্লগারের পুরোটাই ফ্রি। কিছু প্রিমিয়াম সুবিধা থাকলেও সেটা একাউন্ট সম্পর্কিত (যেমন স্পেস), শুধু ব্লগস্পটের সাথে সম্পর্কিত না। এছাড়া, গুগোল ব্লগস্পটে কোন প্যামেন্ট ছাড়াই কাষ্টম ডোমেইন এড করা যায় শুধু ইচ্ছা করলেই, আর তাই অনলাইনে আয় করার জন্য ব্লগিং এর ক্ষেত্রে ফ্রি ব্লগ হিসাবে আমার প্রথম পছন্দ এই গুগোল ব্লগস্পট।

গুগোল ব্লগস্পট’এ একটি ফ্রি ব্লগ খোলার জন্য আলাদা করে কোন একাউন্ট খোলার দরকার নাই, একটি গুগোল একাউন্ট থাকলেই যথেষ্ট। আমি আশা করব সবার অন্তত একটি গুগোল একাউন্ট (বা জিমেইল একাউন্ট আছে)। যদি না থেকে থাকে বা ব্লগিং এর জন্য আপনি অন্য কোন গুগোল একাউন্ট খুলতে চান, তবে নির্দিধায় খুনে নিন। তারপর সরাসরি এখানে ক্লিক করুন। আপনার একাউন্ট থেকে প্রথমবার ব্লগার এ প্রবেশ করে থাকলে, নিচের মত একটা পেজ আসতে পারে,

Google Blogger Continue Profile Page Screen Snap

১ম বার লগইন করলে এমন পেজ আসতে পারে ( আমি সবুজ মার্ক করা বাটন প্রিফার করি)

এই পেজে ২টা আপশন আছে, দুটোর পার্থক্য বর্ণনা না করে, আমি বলব সোজা সবুজ মার্ক করা বাটনে ক্লিক করেন। বিশ্বাস করেন, এতে আপনার সংসার ভাঙবে না 😛 ব্যাস, মোটামোটি এখন আপনি ব্লগস্পট ব্লগ খোলার জন্য রেডী।

নোটঃ কেউ কেউ কনফিউশনে ভূগতে পারেন যে, একবার ব্লগার বলচ্ছি আর আরেকবার ব্লগস্পট বলচ্ছি, আসলে সঠিক কোনটা বা ভুল কোনটা। এখানে ব্যাপারটা হচ্ছে গুগোলের ব্লগিং প্ল্যাটফর্মের এডমিন এড্রেস বা লগইন এড্রেস হচ্ছে blogger.com এবং আপনার ফ্রি ব্লগের এড্রেস হবে  LabibTestBlog.blogspot.com আর তাই দু’টো নামই ব্যাবহার করেন ব্যাবহারকারীরা, যেখানে ওয়ার্ডপ্রেস এ পুরাটাই ১টা ডোমেইন দিয়ে করা হয়

আপনার সব যদি ঠিক থেকে থাকে, তাহলে নিচের মত একটা পেজ আসার কথা। আর ব্রাউজারের এড্রেসবারে এড্রেস হওয়ার কথা blogger.com/home আর ভুলক্রমে এই একাউন্ট দিয়ে পূর্বে কোন ব্লগ খোলা হয়ে থাকলে তার সেগুলোর তালিকা আসবে।

Google Blogspot Home

Google Blogspot Default Home

বাটন গুলা অলরেডি দেখা যাচ্ছে, আর কি বলার আছে? যাষ্ট নিউ বাটনে ক্লি করতে হবে। ক্লিক করলে নিচের মত একটি পপ-আপ বক্স আসবে।

Blogspot Create Blog Page

Blogspot Create Blog Page/Popup

কমলা রঙ এর ঘর দুটোয় ব্লগের টাইটেল, পরের ঘরে ব্লগের ঠিকানা আর তার পরের নীল ঘর হচ্ছে টেমপ্লেট সিলেক্ট আর সবশেষ সবুজ বক্স দেখানো Create Blog! বাটনে চাপ দিলেই ব্লগ তৈরী হয়ে গেল labibtestblog.blogspot.com! এখন ব্লগ টাইটেল লিষ্টে দেখা যাচ্ছে,

Blogspot Blog List

Blogspot Blog List

এখানে,

  1. [১] New Blog বাটন তখনো বর্তমান। আপনি চাইলে আরো ফ্রি ব্লগ তৈরী করতে পারবেন এখন বা পরে যে কোন সময়। একটি গুগোল একাউন্ট দিয়ে প্রায় ১০০ টি ফ্রি ব্লগ তৈরী করা যায়!
  2. [২] টাইটেলে ক্লিক করলে, শুধু এই ব্লগটার সেটিং প্যানেল বা এডমিন প্যানেল ওপেন হবে।
  3. [৩] সেটিং প্যানেলে ঢুকলে নিউ পোষ্ট বাটন পাওয়া যায়, তবে সরাসরি এই বাটনে চাপ দিয়েও নতুন পোষ্ট লেখা যায়।
  4. [৪] ব্লগ সাইট টি ওপেন হবে।

আমরা সরাসরি টাইটেল [২] এ ক্লিক করে, মাত্র তৈরীকৃত ব্লগটির কন্ট্রোল প্যানেল বা এডমিন প্যানেল বা সেটিং প্যানেলে যাব। যেটা দেখতে নিচের ইমেজ এর হুবহু 😛

Blogger Blog Setting Panel

Blogger Blog Setting Panel

উপরের ছবিটিতে, বাম পাশের নীল বক্সে মেনু আইটেম, মাঝে কমলা বক্সে হিট বা পেজভিউ সংক্ষ্যা আর ডানে বেগুনী বক্সে এই ব্লগটির স্ট্যাটিক্স দেখাচ্ছে। আমি শুধু বামের মেনু গুলোর মধ্যে যেগুলো অবশ্যই দরকারী, সেগুলোর সংক্ষিপ্ত বর্ণনা দেয়ার চেষ্টা করব।

  • Overview: বর্তমানে যেই পেজে আছি, সেটাই ওভারভিউ, তাই ওটা কমলা হয়ে আছে।
  • Posts: এই মানুতে আগের সকল পোষ্ট (আর্টিকেল) গুলো লিষ্ট আকারে দেখাবে, ইচ্ছামত এডিট, ড্রাফট (আনপাবলিশ) করা, মার্ক করে অনেক গুলো পোষ্ট একই সাথে পাবলিশ করা বা ডিলিট, ইত্যাদি করা যায় এই মেনু থেকে। আর, নতুন পোষ্ট লেখার অপশন টা আমরা একটু পরে দেখব, এখন মেনু আইটেম গুলা বুইঝা লই, না কি?
  • Pages: ব্লগের পেজ গুলো দেখাবে। নতুন পেজ তৈরী করা যাবে ইত্যাদি।
  • Comments: আপনার ভিজিটরদের রেখে যাওয়া ভাল/মন্দ কমেন্ট এখান থেকে মডারেট (ডিলিট/পাবলিশ/ব্লক) করা যাবে।
  • Google+: আপনার ব্লগের পোষ্ট গুলো গুগোলের সোসাল নেটওয়ার্কিং প্ল্যাটফর্ম গুগোল প্লাস এ অটো শেয়ার হবে কিনা বা গুগোল প্লাসের সাথে আদৌ কোন যোগাযোগ থাকবে কিনা ইত্যাদি অপশন থাকে। আমি অটো শেয়ার অন রাখাই সাজেষ্ট করব। এতে পোষ্ট পাবলিশ করার সাথে সাথে লেখাটি আপনার গুগোল প্লাস একাউন্ট থেকে অটো শেয়ার হয়ে যাবে।
  • Stats: আপনার ব্লগে কতজন ভিজিটর আসতেছে, কোথা থেকে আসতেছে, কোন দেশ, কখন, কোন পেজে আসল, কোণ ওয়েবসাইট থেকে আপনার ব্লগের খোঁজ পেল, কবে কট ভিজিট হয়েছিল ইত্যাদি দেখাবে এই অংশে।
  • Earnings: এটা মূলত এডসেন্স থাকলে ব্লগের কোথায় কোথায় এডসেন্স বিজ্ঞাপন দেখাবে, এসব সেটাপ করা যায়।
  • Campaigns: গুগোলকে টাকা দিয়ে আপনার সাইট প্রোমোট করার অপশন। এই আপশন টা আপনার না গুতাইলেও চলবে। কারণ, আপনি  টাকা নিতে আসছেন, দিতে আসেন নাই 😉
  • Layout: এটা অত্যান্ত দরকারী। সাইটের কোথায় কি থাকবে তা এখান থেকেই নির্ধারণ করতে হবে 😉 সো, এটা নিয়ে আমরা আরো বিস্তারিত আলোচনা করব।
  • Template: সাইট টা দেখতে কেমন হবে, ইত্যাদি দেখা। থার্ড পার্টি (৩য় পক্ষের তৈরী) ট্যাম্পলেট ব্যাবহার করতে গেলে এটা লাগবে। বা, আপনি যদি আরো বেশি শিখতে চান, বা টেম্পলেট এর  ভেতরে কিছু চেঞ্জ করতে চান, তবে লাগবে এই মেনু টা। আর ঠিক এই মুহূর্তে পশন টা অদরকারী, তাই স্কিপ করে যাচ্ছি।
  • Settings: সেটিং দিয়া ভাত খায়, চা খায়! আর কিছু কওয়া লাগব? 😛

বয়ানঃ আমি আশা করব, যারা শিখচ্ছেন, তারা সবাই প্রতিটা অপশনে ঢুকে ঢুকে ইচ্ছামত টেষ্ট করবেন, কোথায় কি আছে। প্রায় প্রতিটা মেনু/অপশনের ভেতরেই একাধিক সাবমেনু/সাব অপশন আছে। কয়েকদিন ঘাটাঘাটি করলে নতুন নতুন অনেক বিষয়, ট্রিক্স সামনে চলে আসবে, আস্তে আস্তে প্যানেল টা পানি ভাতের মত সহজ হয়ে যাবে। আর উলটাপালটা হয়ে গেলেও সমস্যা নাই 😉 শিখতে গেলে উল্টাপালটা করা টা অনেক অনেক বেশি জরুরী।

পোষ্ট লেখা/New Post

প্রথমে নিচের ইমেজ টা দেখেন, নতুন পোষ্ট/আর্টিকেল লিখতে গেলে এই পেজ টা আসবে প্রতিবার,

Blogspot Post Writing

Blogspot Post Writing

ছবিটা দেখেই সব বুঝে যাওয়ার কথা, তবু বুঝতে সুবিধা হওয়ার স্বার্থে দাগ টেনে দিয়েছি। তবে Labels ও Permalink নিয়ে কিছু বলার আছে। লেবেল হচ্ছে মূলত ক্যাটাগরী বা মেনু আইটেম। আপনার লেখাটি যেসব মেনু আইটেম এর অন্তর্গত, সেইসব আইটেম লেবেল হিসাবে দিবেন, লেবেল এর বানান ও বড়/ছোট অক্ষর খুব সাবধানে করতে হবে। যেটা দিবেন সেটাই ফিক্সড। পরে চেঞ্জ করা যায় কিন্তু প্যারা আছে! 🙁

আর পার্মালিঙ্ক হছে পোষ্ট এর URL অংশটুকু।এই অংশটুকু এসইও (SEO) বা সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন এর জন্য দরকারী এবং পরে চেঞ্জ করলে সাইটে 404 ইরর দেখাবে। তাই ভালভাবে খেয়াল রাখতে হবে। যেমনঃ LabibTestBlog.blogspot.com/2015/03/I-am-Very-Tired-Right-Now.html এখানে, সবুজ টুকু তো ব্লগ লিঙ্ক, পরে সাল তারিখ ইত্যাদি, নীল অংশ টুকু পার্মালিঙ্ক আর গোলাপী টা এক্সটেনশন।

 

লেয়াউট/Layout

প্রথমে লেয়াউট মেনুটার একটা স্নেপ দেখাই। তাহলেই সব বুঝে যাবেন, তবে Newbie দের জন্য ২/৩ টা কথা না বললেই না, তাই ইমেজ দিতে হচ্ছে।

 

Blogspot Layout Settings

Blogspot Layout Settings

যারা শেখার জন্য পড়চ্ছেন, তাদেরকে বলব এই অংশটা নিজে নিজে চেষ্টা করার জন্য। দেখাই বোঝা যাচ্ছে, সাইটের কোন জাগায় কি কি থাকবে, এগুলো লেয়াউট সেটিং এ মাইস দিয়ে ক্লিক করে এখান থেকে ওখানে নিয়ে দাওয়া যায় এবং সেই অনুযায়ী সাইটে দেখায়। আপনাকে যা করতে হবে, নিজের পছন্দ মত Gadget এড করতে হবে, যেখানে যেখানে অপশন আছে। তবে, দুটি স্থান আমি মার্ক করে দিয়েছি। ১টা হলো Navbar আর আরেকটা হলো Add a Gadget আর অনেক যাগায় Add a Gadget লেখা থাকলেও শুধু এক জাগায় ই মার্ক করেছি।

Navbar: প্রথমে Edit এ ক্লিক করুন, সেখান থেকে ‘off’ সিলেক্ট করে সেভ করুন। ব্যাস! আপনার সাইটে ন্যাভিগেশন বার (bar) আর দেখাবে না। ন্যাভিগেশন বার (bar) হচ্ছে, গুগোলের ব্লগ সার্চ করার বা এক ব্লগ থেকে রেন্ডম আরেকটা ব্লগে যাওয়ার বার (bar)। আমার কাছে, এই বার (bar) টা বন্ধ থাকলেই ভাল লাগে। (অনেকটা শুক্র বার এর মত 😛 হা হা হা)

সবই তো বুঝলাম, কিন্তু সাইটের মেনু বানাব কিভাবে? – এইতো লাইনে আসছেন। আগেই বলছি, আপনার পোষ্টের Labels গুলো  হচ্ছে আপনার মেনু। যাষ্ট মার্ক করা Add a Gadget এ ক্লিক করুন এবং লিষ্ট থেকে Labels সিলেক্ট করুন। ব্যাস, আপনার সাইটে মেনু এড হয়ে গেল।

আপনার ব্লগস্পট ব্লগ এখন মোটামোটি কমপ্লিট 😉

ব্লগস্পটে একটা ব্লগ বানানো আসলে এতটাই সোজা। ৫/৭ মিনিট সময় লাগে কিন্তু আজকে আমার প্রায় ৫/৭ ঘন্টা লাগলো! কারণ, বানানো, স্নেপ নেয়া, এডিট করা, আপলোড করা তারপর লেখা! যাই হোক, লেখাগুলো যদি কারো কাজে আসে, তবেই এই পরিশ্রম স্বার্থক। কোন প্রশ্ন থাকলে জিজ্ঞাসা করতে ভুলবেন না, আমার ভুল হয়ে থাকলে ধরিয়ে দিতেও ভুলবেন না।

অফটপিকঃ লেখার সময় ভাবী চা দিয়ে গেছিল! কখন দিছে টের ই পাই নাই 🙁  ঠান্ডা হয়ে গ্যাছে :/

 

 

৯৬৯৫ টি সর্বমোট হিট ৩ টি আজকের হিট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *