make money with blogging

অনলাইনে আয় – ব্লগিং, এডসেন্স, আকাম, স্প্যামিং ও…

আমি আশা করব আপনি প্রাথমিক প্যাচাল পড়ে এই পাতায় এসেছেন। ওটা না পড়ে আসলে আপনার বুঝতে অসুবিধা হতে পারে, তবে আপনার মাথায় প্রয়োজনের বেশি ঘিলু থাকলে আমার সমস্যা নাই।

অনলাইনে আয়ের সবচাইতে সহজ, আদি-আসল রাস্তা হচ্ছে ব্লগিং। না, আমি বাংলা কমিউনিটি ব্লগ গুলোতে নিয়মিত/অনিয়মিত লেখালেখির কথা বলচ্ছি না। আয়ের জন্য ব্লগিং বিষয় টা একটু ভিন্য। এখানে মূলত ব্লগে কিছু টার্গেটেড বিষয় নিয়ে লেখা হয়।

অনলাইনে আয়ের এই ধরণের ব্লগ গুলোকে মূলত ২ ক্যাটাগরীতে ভাগ করা যায়ঃ

  1. অবৈধ ব্লগিং – স্পাম ব্লগ (Gray), সফট পর্ণ, ইল্লিগাল, পাইরেটেড সফটওয়ার নিয়ে রিভিউ ব্লগ ও সাথে ডাউনলোড লিঙ্ক।
  2.  বৈধ ব্লগিং – সুকাম (White) – মানসম্মত ব্লগ লেখা ও সেখানে এডসেন্স বা ভাল কোন অল্টার্নেটিভ ব্যাবহার করা।

অবৈধ ব্লগিং বা আকাম

আমরা সবাই আসলে আকামে খুব এক্সপার্ট। তাই এডসেন্স বা হোয়াইট লেভেল ব্লগিং এর আগে গ্রে’এর ব্যাপারে আগে বলতে চাই। আকাম আমাদের সবার পছন্দ এবং প্রিয়। এই ধরণের ব্লগ গুলোর কাজ হচ্ছে মূলত পেইড সফটওয়্যার গুলোর ক্র্যাক ভার্সন খুঁজে খুঁজে সেগুলোর ডাউনলোড লিঙ্ক ব্লগে পোষ্ট করা। ডাউনলোড লিঙ্ক গুলোর উপর বিভিন্ন URL Shortener সাইট এর লিঙ্ক বসানো বা তাদের দেয়া স্ক্রিপ্ট বসানে। সাইটে প্রচুর পরিমানে পপ-আপ এড বসানো এবং ছোট্ট করে ডাউনলোড লিঙ্ক বসানো ও সেই ছোট্ট লিঙ্ক এর চারপাসে বড় করে এড বসানো।

খরচাপাতি ও সাইট বানানোঃ আপনি গুগোলের ব্লগার বা ওয়ার্ডপ্রেস এ এসব ব্লগ বানাতে পারেন। এতে আপনার কোন পয়সা খরচ হবে না। আপনি যদি ডোমেইন কিনে ব্লগারে এইসব ব্লগ বানান, তবে কিছু খরচ হবে (Ex. dot com around $10) এবং তা অপেক্ষাকৃত ভাল হয়। WordPress CMS এর সাথে ওয়ার্য হোস্টিং (যেখানে ইল্লিগাল জিনিস আপলোড করা যায়) কিনে সাইট বানাতে পারলে আরো ভাল। আকামের ও ব্র্যান্ড আছে। ব্র্যান্ডের আকামের জন্য এটা করতে হবে। 😉

এসব সাইট থেকে আয়ঃ এইসব সাইট থেকে খুব ভাল আয় হয় না, তবে আমি এমন অনেক কে চিনি অনেক ভাল আয় করেন। এমন সফল মানুষও আছে, যাদের দিনে প্রায় ১০০ ডলারের বেশি আয় হয়। এসব সাইট এডসেন্স সাপোর্ট করে না। আর ভিজিটর রা ফিরে আসে না। একজন ভিজিটর জীবনে একবারই আসেন, কোন সফটওয়্যার এর ক্রেক, প্যাচ বা সিরিয়াল কি ডাউনলোড করার জন্য। তারা সাইটের অন্য অংশে ক্লিক করা মাত্রই কিছু পপ-আপ বিজ্ঞাপন দেখানো হয়, এতে করে আয় হয়। কেউ কেউ এড ও ডাউনলোড লিঙ্ক এর মধ্যে পার্থক্য না বুঝে, এড এ ক্লিক বলেন, এটা আয়ের প্রধাণ উৎস। মানে হচ্ছে, যত বেশি পরিমান নির্বোধ আপনার সাইট ভিজিট করবে, তত বেশি  আপনার ইনকাম। ক্র্যাক সাইট এর ইনকাম! ভালাই তো 😛 আপনার এড প্রোভাইডর রা এমন কনফিউজিং এড ই আপনাকে দিবে। তারপরেও, কোন ভিজিটর যদি বুঝতেই পারে যে, কোনটা ডাউনলোড লিঙ্ক, সে সেখানে ক্লিক করলেও আপনার আয় হবে। কারণ, অনেক URL Shortener সার্ভিস প্রোভাইডার আছে যেমন adfoc.us এবং adf.ly (আমার রেফার লিঙ্ক 😛 দেয়া আছে) যারা প্রতি ক্লিকের বিনিময়ে টাকা দিয়ে থাকেন। অনেক ফাইল হোস্টিং প্রোভাইডার আবার প্রতি ফাইল ডাউনলোডের জন্যও টাকা দিয়ে থাকেন, যেমন জিদ্দু।

সমস্যাঃ এসব সাইটের মূল সমস্যা হলো গুগোলের লাত্থি মানে প্যানাল্টি। প্রায়ই ব্লগার/ওয়ার্ডপ্রেস মডারেটর বা বট (বট মানে মনে করেন রোবট)  তাদের বেআইনী প্রোডাক্ট/লিঙ্ক ওয়ালা ব্লগ গুলো নোটিশ ছাড়াই বন্ধ করে দেয়। সেক্ষেত্রে আপনার এতদিনের কালেকশনের সাইট তথা আপনার আয় হঠাত করেই বন্ধ হয়ে যেতে পারে, তাই ব্যাকআপ রাখা জরুরী। তাছাড়া, আপনাকে রেগুলার কোন কোন নতুন সফটওয়্যার আসতেছে, তা খেয়াল রাখতে হবে, কোনটার ডাউনলোড লিঙ্ক এক্সপায়ার্ড হয়ে গেল, তা খেয়াল করে আপডেট করতে হবে। রেগুলার আপডেট না থাকলে ভিজিটর আসবে না। সাইট এর ভিজিটর বাড়ানোর জন্য অন্য ব্লগে টুকটাক স্প্যাম করতে হবে ইত্যাদি। তবে, আপনি পয়সা খরচ করে ওয়ার্জ হোস্টিং কিনে, সেখানে এসব আকাম এর সাইট বানালে অন্তত ডিলিট হয়ে যাওয়ার চান্স নাই।

 আমার এইরকম সাইট আছে কিন্তু এড নাই, কি করব? – পর্ণ সাইট? তাইলে কিচ্ছু করার নাই, মুড়ি ভিজায় খান।  আর যদি ডাউনলোড সাইট যেমন পিডিফ ডাউনলোড, ক্রেক বা মুভি ডাউনলোড, মিউজিক ডাউনলোড সাইট থাকে এবং ভাল ভিজিটর থাকে, তবে বিভিন্ন পাবলিশার নিজেরাই আপনার সাথে যোগাযোগ করবে। তবে, সাইটে অন্তত একটা যোগাযোগের মাধ্যম থাকা ভাল। আপনার সাইটে যদি ভাল পরিমান ভিজিটর অলরেডি থাকে কিন্তু কেউ যোগাযোগ না করে, তাহলে সাজেদুল হক ভাই এর সাথে যোগাযোগ করতে পারেন 😉 আমার কথা বইলেন না প্লিজ 🙁

 

বৈধ ব্লগিং বা সুকাম

বৈধ ব্লগিং হচ্ছে, এতক্ষন যা যা জানলেন, তার উল্টা। এখানে কোন ছল চাতুরি নাই। কোন ইল্লিগাল কন্টেন্ট নাই। কোন আকথা, কুকথা নাই। কোন পাইরেসি নাই, ক্রেক নাই, ইল্লিগাল ডাউনলোড লিঙ্ক নাই, আজাইরা পপ-আপ বিজ্ঞাপন নাই। URL শর্টেনার নাই, কনফিউজিং ডাউনলোড লিঙ্ক নাই।

আরে Ball, তাইলে বৈধ ব্লগিং এ আছে কি? – বৈধ ব্লগিং ই হচ্ছে আসলে ব্লগিং। এতক্ষন যা অবৈধ ব্লগিং হিসাবে পড়লেন সেটা আসলে স্পামিং বা বাটপারি ছাড়া আর কিচ্ছু না। কিন্তু, বৈধ ব্লগিং এ আছে সম্মান, মান সম্মত আয়, নিজেকে তুলে ধরার ব্যাবস্তা, মনের কথা বলার মত যায়গা। মজার ব্যাপার হচ্ছে, মন যা চায়, যেটা আপনি ভাল জানেন, ভাল বোঝেন, সেটা লিখেই আপনার অনলাইনে আয়!

আমি তো কিচ্ছু পারি নাঃ লিখতে বসলে বা নিজে নিজেকে প্রশ্ন করলে আসলে কিছুই পারি না বলেই মনে হয়। এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু আপনি নিজে নিজে লেখার মত অবশ্যই কিছু না কিছু পারেন। ইংরেজীতেই লিখতে হবে, এখন আর এমন কোন কথা নাই। এখন মোটামোটি বাংলা সাইটেও এডসেন্স এর এড দেখা যায়। তবে, এডসেন্স এপ্রুভালের জন্য ইংরেজী সাইট প্রয়োজন। শুধু বাংলা সাইট দিয়ে কাউকে এডসেন্স এপ্রুভাল পেতে আমি  কাউকে দেখিনি।

labib adsense demo

একটি এডসেন্স একাউন্টের ভেতরের অংশ

উপরের ছবিটা যারা নতুন তাদের প্রেরণা জাগানোর জন্য দিলাম। বাংলাদেশে অনেক অনেক ব্লগার আছেন, যারা মাসে হাজার ডলারের বেশি ইনকাম করেন। তবে, প্রথমদিনেই হাজার ডলার আয়ের চিন্তা করলে, কিছুদিন কাজ করে টায়ার্ড হয়ে যাবেন। তাই, প্রথমেই হাজার ডলার আয়ের চেষ্টা না করে, হাজার ডলার আয় না হওয়া পর্যন্ত চেষ্টা চালিয়ে যাবেন বলে প্রতীজ্ঞা রাখুন।

কি নিয়ে লিখব? – আমি যে কোন বিষয় নিয়েই লিখতে পারেন। অনলাইনে সার্চ করে কোন কোন কীওয়ার্ড (Keyword) এর মূল্য বেশি, তা জেনে নিয়ে ব্লগ বানানো ও লেখা শুরু করাই বুদ্ধিমানের কাজ হবে। নিজের জানা গল্প, অভিজ্ঞতা লিখতে পারেন, ছবি তুলে ব্লগ বানাতে পারেন বা যে কোন কিছু। শুধু কন্টেন্ট এর মালিক আপনার নিজে হতে হবে।

আমি কপি/পেষ্ট খুব ভাল পারি – গুষ্টি কিলাই আপনার। কপি পেষ্ট মারলেন! তো নিজের গলা নিজে কাটলেন। যেই টপিক এর উপর লিখতে চান, তা নিয়ে অনলাইনে রিসার্চ (Research) করেন। বেশি বেশি অন্যদের লেখাগুলো পড়ে আইডিয়া নিন, তারপর নিজের মত করে লিখুন। আর কপি/পেষ্ট করলে, গুগোল আপনার কন্টেন্ট সার্চ রেজাল্ট এ আনবে না, সেই হিসাবে ভিজিটর ও আসবে না। আপনার সম্পূর্ণ শ্রম বৃথা যাবে। গ্যারান্টি দিচ্ছি।  জেনে রাখা ভাল যে, বেশিরভাগ ওয়েবমাস্টার তাদের সাইটে গুগোল এনালাইটিক্স ব্যাবহার করেন, ভিজিটরদের আচরণবিধি দেখার জন্য। তাই, মোটামোটি আপনি যেই সাইটেই ভিজিট করেন না কেন, গুগোল ঠিকই জানে আপনি কোন সাইটে যাচ্ছে, সেখানে কি করতেছেন, কতক্ষন থাকচ্ছেন, কোথা থেকে কি কপি করচ্ছেন, সব! তাই, গুগোলের সাথে চোর পুলিশ না খেলাই ভাল হবে।

কোথায় সাইট বানাব? – ব্লগার বা ওয়ার্ডপ্রেস যে কোথাও বানাতে পারেব। ইচ্ছে করলে গুগোল ব্লগস্পটে এসইও ফ্রেন্ডলি ব্লগ খোলা ও ব্যাসিক কাস্টমাইজেশন কিভাবে বলতে হয়, তা দেখে নিতে পারেন। আপনি ওয়ার্ডপ্রেসেও ফ্রি ব্লগ খুলতে পারেন এবং সুবিধার জন্য ওয়ার্ডপ্রেস ব্লগ খোলা ও বেসিক কাস্টমাইজেশন টিউটোরিয়াল দেখে নিতে পারেন। তবে, আমি ওয়ার্ডপ্রেস থেকে গুগোলের ব্লগস্পট প্ল্যাটফর্ম বেশি প্রাধান্য দেই কারণ গুগোলের নিজস্ব সার্ভিস হওয়ায় এই সাইটগুলোর রেজাল্ট ওয়ার্ডপ্রেস ফ্রি ব্লগ গুলো থেকে বেশি আসে (আমার ধারনা) আর অন্যান্য সুবিধা যেমন ব্লগস্পট সাইটে কাষ্টম ডোমেইন এড করা, গুগোল প্লাসের সাথে কানেক্ট করা ইত্যাদি অপেক্ষাকৃত সহজ। ওয়ার্ডপ্রেস ফ্রি ব্লগে ডোমেইন এড করতে গেলে টাকা দিতে হয় তাছাড়া প্রিমিয়াম ফিচার কেনার জন্য ক্রমাগত চাপ দিতে থাকে। অযাচিত বিজ্ঞাপন ও দেখায় তারা। সেই হিসাবে গুগোল ফ্রি তে যা দিচ্ছে, মাথাই নষ্ট!

আমি ফ্রি না, ডোমেইন হোস্টিং কিনে সাইট বানাতে চাই – বুচ্ছি আপনার পকেট এ ট্যাকা আছে। অথবা আপনি ফ্রি সাইটে ব্লগ বানাতে চাচ্ছেন না। নিজে ডোমেইন হোস্টিং কিনে সাইট বানাতে চাচ্ছেন যাতে দীর্ঘমেয়াদে বড় কিছু করা যায়। হ্যা, প্রফেশনালি ব্লগিং শুরু করার জন্য নিজে ডোমেইন হোস্টিং নিয়ে শুরু করা টা অনেক বেশি ভাল। তবে, আমি সাজেষ্ট করব অন্তত কিছুদিন হলেও ফ্রি গুলো ট্রাই করার জন্য। ব্লগস্পটে ডোমেইন এড করে ব্যাবহার করা আর হোস্টিং কিনে সাইট বানিয়ে ব্লগিং করায় খুব বেশি পার্থক্য নাই। তবে, ডোমেইন হোস্টিং কিনে ব্লগিং শুরু করা টা অনেক বেশি প্রোফেশনাল এবং ভাল। পরবর্তিতে ব্র্যান্ডিং এর জন্যও এটা অনেক ভাল কাজে দেয়।

সাইটে এড বসানো ও আয় করব কিভাবে –  এডসেন্স একাউন্ট থেকে থাকলে এবং আপনার সাইটে ভাল পরিমান ভিজিটর থেকে থাকলে আপনি এড বসিয়ে দিতে পারেন। এডসেন্স না পেয়ে থাকলেও সমস্যা নাই, অনেক অল্টার্নেটিভ আছে এডসেন্স এর, তবে এডসেন্স বেষ্ট! সেসব একাউন্টে ঢুকলেই কিভাবে এড বসাতে হয় তা বলে দিবে।এছাড়া, আপনার ব্লগ যদি ভাল জনপ্রিয় হয়, তবে আপনি বিভিন্ন সাইট বা কোম্পানি থেকে তাদের জন্য একটা রিভিউ বা একটা ব্যাকলিঙ্ক ইত্যাদির রিকোয়েষ্ট পাবেন।

সতর্কতাঃ আগেই বলেছি, গুগোলের সাথে চোর পুলিশ না খেলাই ভাল। ভুলেও নিজের এড এ নিজে ক্লিক করবেন না। অনেক বন্ধু/শত্রু থাকতে পারে যারা আপনার উপকার করতে যেয়ে বা ক্ষতি করতে যেয়ে অযথা এড এ ক্লিক করতে পারে, সে ক্ষেত্রে কোন বিশেষ দেশের জন্য এডসেন্স এর এড বন্ধ করে রাখা যায়। কোন ক্রমেই ভিজিটরদের বিজ্ঞাপনে ক্লিক করতে উৎসাহিত করবেন না।

ইচ্ছা ছিল এক্কেবারে ছোট করে লিখেতে 🙁 লিখতে লিখতে বড় হয়ে গেছে, তাই এখানেই শেষ করে দিচ্ছি। হেল্প লাগলে বা অসম্পূর্ণ মনে হলে জিজ্ঞাসা করতে বা মন্তব্য করতে ভুলবেন না 😉

পরপর্তী টপিকঃ অনলাইনে আয় – ফেসবুকে লাইক/কমেন্ট দিয়ে আয় (মাইক্রো প্ল্যাটফর্ম)

৯৫০৬ টি সর্বমোট হিট ২ টি আজকের হিট

5 comments

  1. Zamil

    hmmmm… apni tahole adsense er kotha bolte chaccen . dhonnobad bhai ei rokom ekta likhar jonno. onek osohay manuser onek kaj a asbe ei likha ti…

  2. সাজেদুল

    ভালোই তো লেখলা কিন্তু পর্ণ আর স্পেম রে এক সাথে ফালাইছ কেন? :/

    • Labib Ittihadul

      |Author

      সফট পর্ণ এর কথা বলছি আসলে। বেশি বড় করতে চাই নাই, তাই এক সাথে দিয়া দিছি। পরে সময় পাইলে আলাদা করে দিব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *