Bangladeshi Taka BDT

সবার জন্য অনলাইনে আয় – যেভাবে শুরু, পথঘাট ও সূচীপত্র

ফ্রিল্যান্সিং করেন, বা আউটসোর্সিং করেন, কিন্তু কারো কাছ থেকে এমন কনফিডেন্ট কথা শুনেন নি, এমন মানুষ আদতে খুব কমই পাওয়া যাবে। আর যারা কথাটা শুননেনি তারা সত্যি সৌভাগ্যবান।

লাবিব ভাই, একটা কথা ছিল। অনেকদিন আপনাকে বলব বলব করে আর বলা হয়নি।
আমিঃ জ্বি ভাই বলেন, এত চিন্তার কি আছে? ফটাফট বলে ফেলেন!
আসলে ভাই, আমি তো ইদানিং অবসর আছি, সারাদিন ফেসবুকে অনেক লম্বা একটা সময় পরে থাকি, এর মাঝে যদি কিছু ইনকাম করা যায় তাহলে তো ভালই হয়। আর আপনি তো অনলাইনে অনেক কিছু করেন, কিছু কাজ আমাকেও দিয়েন।

[তাদের ধারনা হচ্ছে, অনলাইনে বসে বশে কিছু ক্লিক করলেই হয়তো টাকা আসা শুরু করে। ক্রেডিট টু ডুল্যান্সার]

আপনি যার ভাল চান বা অন্ততপক্ষে ক্ষতি চান না, এমন কাউকে অনলাইনে আয়ের ব্যাপারে কোন শর্টকাট ওয়ে বলাটা সত্যি কঠিন। বেশী দূরের হলে হয়তো, “কোচিং করেন বা ট্রেনিং সেন্টার গুলা দেখতে পারেন” বলে শেষ করে দেয়া যায়, কিন্তু কাছের মানুষ যখন এই ধরণের প্রশ্ন করেন, তখনই উপলব্ধি করা যায়, “কিংকর্তব্যবিমুঢ়” শব্দটা হয়তো এই অবস্থার জন্যই তৈরী হয়েছিল। সেটা হতে পারে চা’এর দোকানে টা খেতে খেতে বা ফেসবুকে বা অন্য কোন অসময়ে!

Online Earning Confusion

Online Earning Confusion

যাইহোক, অনেকদিন ধরে চিন্তা করচ্ছিলাম, অনলাইনে আয় এর ব্যাপারে নিজের মত করে ব্লগে কিছু লিখব। অনেকেই আগে পরে লিখেছেন, অনেক ভাল লিখেছেন, তবু নিজের মত করে লেখার ইচ্ছাটা মরে যায়নি। আজ ২১ মার্চ, ২০১৫, “লাবিব ভাই, একটা কথা ছিল” শব্দটা আবার শুনতে হয়েছে। তাই, বাসায় এসেই বসে পড়লাম।

দূর্ভাগ্য বা সৌভাগ্যজনক কারণে ডোল্যান্সার বা এধরনের সাইটের কল্যাণে বাংলাদেশে “অনলাইনে আয়” কথাটার সাথে মোটামোটি সবাই কম-বেশি পরিচিত। সবাই অন্তত এটা শিওর যে, অনলাইনে টাকা আয় করা যায়। কারো ঋণাত্বক অভিজ্ঞতাও আছে। তবে অনেকেরই (বা বেশিরভাগেরই) কিভাবে, কোথা থেকে, কতক্ষনে, কতদিনে, কি কাজ করে, কে টাকা দিবে, কিভাবে হাতে পাব, কি করা লাগবে ইত্যাদি প্রশ্নের উত্তর জানা নাই, এমনকি এই প্রশ্ন করে উত্তর পাওয়ার মত কারো সাথে পরিচয় নাই।

অনলাইনে কত ভাবে যে আয় করা যায়, সেটার কোন হিসাব নেই। তবে আমি অপেক্ষাকৃত সহজগুলো থেকে কঠিন গুলোর দিকে যাব। আর একটা একটা করে আলোচনা করব। চেষ্টা করব যাতে গল্প করতে করতে মূল বিষয় গুলো সহজে বুঝিয়ে দেয়া যায়। বলে দেয়া ভাল, এটা কোন টিউটোরিয়াল টাইপের পোষ্ট না। এটা শুধুমাত্র সর্বজন স্বীকৃত আয়ের রাস্তা গুলো বলে দেয়া আর কোনটা শিখতে হলে কি কি করা লাগবে, তা জানিয়ে দেয়া। গাইডলাইন বলা যেতে পারে।

কিছু কি মিস করে গেলাম? আপনার মাথায় থাকলে জানান। যদি অন্য কোন ওয়ে জানা থাকে, যেটা আমি জানি না, সেটাও জানাতে ভুলবেন না 😉

৭৭৭০ টি সর্বমোট হিট ২ টি আজকের হিট

6 comments

  1. রিফাত

    বেশ মজা করে লেখতেছেন বুজা যায়। মজা পেলাম। তোমার জন্য শুভকামনা রইল।

  2. সাজেদুল

    ভাই আমি অবসর আছি। সারাদিন ফেসবুক নিয়া বইসা থাকি। যদি কোন উপায় বলে দিতেন। খুব বেশি না। মাসে ১০-১২ হাজার হলেও চলবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *