politics

বাংলাদেশের রাজনৈতিক ভবিষ্যত

বর্তমান সময়ের রাজনিতী ও বাংলাদেশের রাজনৈতিক ভবিষ্যত নিয়ে, আমার রাজনৈতিক গুরুর মন্তব্য একদম সংক্ষেপে তুলে ধরলাম। লাইন বাই লাইন বা স্টেপ বাই স্টেপ। প্রতিটা লাইনের পেছনে অনেক যুক্তি ও কারণ আছে।
এটা না পড়াই অনেকের জন্য ভালো হবে, এর পক্ষে বা বিপক্ষে কোন প্রশ্নের জবাব দিতে আমি আগ্রহী নই।

★১৯৯৮ এর দিকে পরাশক্তির দেশে পরিণত হয় ভারত ও পাকিস্তান।
★দুজনের মধ্যেই জাতিসংঘ এর ৪টা দেশের মত ভেটো পাওয়ারের লোভ জাগে।
★ভেটো ক্ষমতা দিতে রাজি নয় বর্তমান চার ক্ষমতাসীন।
★তারা পরিকল্পনা করে ভারত ও পাকিস্তান কে দূর্বল করার।
★পাকিস্তান অপেক্ষাকৃত কম চালাক হওয়ায় এরা আগে ফেঁসে যায়।
★এর ফলস্বরূপ তাদের সরাসরি অর্থায়নে গঠিত হয় তালেবান।
★এক তালেবন সামলাতেই পাকিস্তান হিমসিম খায়।
★পাকিস্তানের এই দূরবস্তায় পারমাণবিক অস্ত্র যাতে সন্ত্রাসীদের হাতে না যায়, তাই এই অস্ত্র রক্ষনাবেক্ষনের দ্বায়ীত্ব চায় আমেরিকা।
★আমেরিকা এখনো পাকিস্তানের পারমাণবিক অস্ত্র কব্জা করতে পারেনি। তবে চেষ্টা অব্যাহত।
★ভারত অনেক চালাক রাষ্ট্র হলেও আমেরিকার সাথে কুলিয়ে উঠা সম্ভব নয়।
★ভারত এর প্রায় সবগুলো রাজ্য এখন স্বাধীন হতে মরিয়া।
★এরই অংশ হিসেবে এপার বাংলা ও ওপার বাংলার সাংস্কৃতিক বিভিন্য মিল খুজে বের করে মিডিয়া।
★তাদের ইচ্ছা একসময় দু বাংলার সংস্কৃতি মিলে একাকার হয়ে গেলে, দু বাংলা এক করার আন্দোলন শুরু হবে।
★একই আন্দোলন ছড়িয়ে পরবে সবকটি অঙ্গ রাজ্যে।
★ভেঙ্গে যাবে মহাভারত, হয়ে যাবে দূর্বল।
★কিন্তু দু বাংলার যোগসাজশ, সাংস্কৃতিক আদান প্রদান বাড়াতে প্রধান বাঁধা ইসলামী দল।
★আর বাংলাদেশের মানুষ ধর্মের ব্যাপারে স্পর্শকাতর।
★ইসলামী দলের মধ্যে বেশি ভুমিকা রাখতে সক্ষম জামাত শিবির।
★জামাত শিবির দমন করতে পারলেই সম্ভব পুরো কাজটা সহজে করা।
★জামাত শিবির দমনের পুরো ঘটনায় আওয়ামীলীগের কিচ্ছু করার নাই।
★পুরা খেলা খেলচ্ছে আমেরিকা, সহযোগী বাম দল আর আওয়ামী লীগ শুধুই পুতুল।
★যদি আমেরিকার উদ্দেশ্য বাস্তবায়ন হয়,তবে পুরো বাংলাদেশের মানুষ হবে আমেরিকার গিনিপিগ।

ইমেজ কার্টেসিঃ উইকিপিডিয়া

২১৭২ টি সর্বমোট হিট ২ টি আজকের হিট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *